ঢাকাসোমবার , ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আরো
  4. কৃষি সংবাদ
  5. জাতীয়
  6. নেত্রকোণা জেলার খবর
  7. প্রধান খবর
  8. প্রযুক্তি
  9. ফিচার
  10. বিদেশ খবর
  11. বিনোদন
  12. বিভাগীয় খবর
  13. রাজনীতি
  14. রাশিফল
  15. লাইফস্টাইল

অ্যালোভেরা : কোন সমস্যায় কীভাবে ব্যবহার করবেন

অনলাইন ডেস্কঃ
সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২১ ৮:৪৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: ঘৃতকুমারী নামটা কি চেনা চেনা লাগছে? আছা যদি অ্যালোভেরা বলি, তাহলে অবশ্যই চিনতে পারবেন। হ্যাঁ ঠিকই ধরেছেন এটি ক্যাকটাস বা ফণীমনসা জাতীয় ভেষজ উদ্ভিত। এখন অনেকের বাড়িতেই অ্যালোভেরা গাছ দেখা যায়। এর হাজারো গুণ। ত্বকের উজ্জল্ল থেকে শরীরের নানা সমস্যার সবেতেই এর জুড়ি মেলা ভার।

রাস্তাঘাটে কিংবা বাজারে খুবই সহজলভ্য এই উদ্ভিদ। রস হিসেবে খাওয়া যায় আবার ত্বকের প্রদাহে প্রতিষেধক হিসেবেও লাগানো যায়। এতে রয়েছে ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, জিংক, আয়রন, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, জিঙ্ক, ফলিক অ্যাসিড, অ্যামিনো অ্যাসিড ও ভিটামিন-এ, বি৬ ও বি২, যা স্বাস্থ্যরক্ষার বিভিন্ন কাজে লাগে।

হজম প্রক্রিয়া
হজম শক্তি বৃদ্ধিতে অ্যালোভেরার তুলনা হয় না। এর অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপাদান পাকস্থলী ঠাণ্ডা রাখে এবং গ্যাসের সমস্যা দূর করে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এক গ্লাস জল বা গুড়ের শরবতের সঙ্গে অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যাবে।

ডায়াবিটিস
যারা ডায়াবিটিসের সমস্যায় ভুগছেন তারা নিয়মিত অ্যালোভেরা রস খেলে রক্তের গ্লুকোজের পরিমাণ কমিয়ে আনতে এবং ডায়াবিটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবেন।

চুলের যত্ন
চুলের শুষ্ক ভাব এবং ত্বকে চুলকানি দূর করার জন্য অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারবেন। এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান চুল পড়া ও খুশকির সমস্যা দূর করতে সাহায্য করবে। তাই অ্যালোভেরা রসের সঙ্গে আমলকীর রস মিশিয়ে চুলে লাগালে এতে চুলের উজ্জ্বলতাও বেড়ে যাবে।

ত্বকের যত্নে
বহু বছর ধরে ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ত্বকে র‌্যাশ, চুলকানি, রোদে পড়া দাগ দূর করতে অ্যালোভেরার তুলনা হয় না। যেকোনো উপটান বা প্যাক অথবা সরাসরি এই জেল লাগালে ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ থাকে এবং বয়সের ছাপ মুছে যায়। অ্যালোভেরার মধ্যে থাকা উপাদান খুব সহজেই ত্বকের ইনফেকশন দূর করে। এর পাশাপাশি ব্রণ হওয়ার প্রবনতাও অনেকাংশে কমিয়ে দেয়।

ওজন কমাতে
ওজন কমাতে অ্যালোভেরার জুস অনেক বেশ কার্যকরী। অ্যালোভেরা জুসের অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপাদান শরীরের জমে থাকা মেদ দূর করে এবং কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই ওজন কমাতে সাহায্য করে।

হার্ট ও দাঁতের যত্নে
অ্যালোভেরার জুস কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে রাখে। এটি দূষিত রক্ত দেহ থেকে বের করে দেয় এবং হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে থাকে। এছাড়াও অ্যালোভেরা জুস দাঁত এবং মাড়ির ব্যথা ও ইনফেকশন নিবারণে সহায়তা করে। অ্যালোভেরার জুস শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। এটি আবার ব্লাড প্রেসারকে নিয়ন্ত্রণ করে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে। এর পাশাপাশি রক্তে অক্সিজেন বহন করার ক্ষমতাকেও বাড়ায়। যার ফলে দীর্ঘদিন আপনার হার্ট ভালো থাকে।

ক্লান্তি দূর করে
দেহের দুর্বলতা দূর করতে অ্যালোভেরার জুস খুবই কার্যকরী। নিয়মিত অ্যালোভেরার জুস খেলে শরীরের ক্লান্তি দূর হয়। এতে শরীর সতেজ থাকে।

চুলের পুষ্টি বৃদ্ধি করে
চুলের শুকনো ভাব দূর করতে অ্যালোভেরা জেল খুবই উপকারী। এর অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টি ফাংগাল উপাদান চুল পড়া ও খুস্কির সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ তুলসি পাতার গুণেই কমবে ডায়াবেটিস

x