ঢাকাশুক্রবার , ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইন আদালত
  3. আরো
  4. কৃষি সংবাদ
  5. জাতীয়
  6. নেত্রকোণা জেলার খবর
  7. প্রধান খবর
  8. প্রযুক্তি
  9. ফিচার
  10. বিদেশ খবর
  11. বিনোদন
  12. বিভাগীয় খবর
  13. রাজনীতি
  14. রাশিফল
  15. লাইফস্টাইল

সাইকেল পাওয়ায় এখন আর স্কুলে আসতে দেরী হবে না

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি :
সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১ ৭:১৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার জিসি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী সোহানা খানম। করোনার বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে দীর্ঘ দিন পর স্কুলে আসা যাওয়া করছে। কিন্তু বাড়ী থেকে স্কুলের দূরত্ব বেশি থাকায় যানবাহন না পওয়ায় হেঁটে আসতে মাঝে মধ্যে স্কুলে আসতে দেরী হচ্ছে। তবে সাইকেল পাওয়ায় এখন আর স্কুলে আসতে দেরী হবে না তার। সাইকেল চালিয়ে সময় মত স্কুলে আসতে পারবে শিক্ষার্থী সোহানা। সাইকেল পাওয়ায় তার মত খুশী আরো ২০ শিক্ষার্থী।

সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) কাশিয়ানী সদর ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের অর্থায়নে ২০ শিক্ষার্থীর মাঝে ‘বাইসাইকেল বিতরণ করা হয়। এছাড়া সাত’শ শিক্ষার্থীর মাঝে টিফিনবক্স’ বিতর করা হয়।

উপজেলা পরিষদের হল রুমে ‘বাইসাইকেল ও টিফিন বক্স বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কানতারা খান।

কাশিয়ানী সদর ইউপি চেয়ারমান মো: মশিউর রহমান খানের সভাপতিত্বে কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা রথীন্দ্র নাথ রায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী জাহাঙ্গীর আলম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম পিকুল, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম শাহজাহান সিরাজ, প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মানবেন্দ্র মজুমদার, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজাদ হোসেন মৃধা, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনু, সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম মোল্যা, সাবেক ছাত্রনেতা তুহিন মুন্সী উপস্থিত ছিলেন।

জিসি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর শিক্ষার্থী অধরা নুর, ১০ ম্যেনীর শিক্ষার্থী সনকা বিশ্বাস বলে, বাড়ী থেকে স্কুলের দূরত্ব অনেক হওয়ায় স্কুলে আসতে আমাদের দেরী হত। এতে ঠিকভাবে স্কুল করতে পারতাম না। এতে শিক্ষকরা বকাবকি করতেন। সাইকেল পাওয়ায় এখন আর আমাদের অন্য গাড়ীর উপর নির্ভর করতে হবে না। সাইকেল চালিয়ে সময় মত স্কুলে আসতে পারবো।

কাশিয়ানী সদর ইউপি চেয়ারমান মো: মশিউর রহমান খান বলেন, অনেক শিক্ষার্থীর বাড়ী থেকে স্কুলে অনেক দুরে। যে কারনে ওইসব শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসতে দেরি হতো। তবে সাইকেল পাওয়ায় এখন আর তাদের দেরী হবে না। এতে তারা সময় মত স্কুলে আসার পাশাপাশি ঠিকমত পড়ালেখা করতে পারবে।

কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা রথীন্দ্রনাথ রায় বলেন, সকলকে ঠিক মত পড়াশোনা করতে হবে। পড়াশোনা করে মানুষের মত মানুষ হতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে দেশ গড়ায় এগিয়ে আসতে হবে। সাইকেল পাওয়ায় শিক্ষার্থীরা এখন সহজেই স্কুলে এসে পড়ালেখা করতে পারবে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কানতারা খান বলেন, বাংলাদেশে এখন মোট জনসংখ্যার অর্ধেক নারী। নিজেকে গড়ে তুলতে হলে শিক্ষাগ্রহন করতে হবে। এজন্য সময় মত স্কুলে আসতে হবে। যারা সাইকেলে পেয়েছে তাদের আর দেরী করে স্কুলে আসতে হবে না।

আরো পড়ুনঃ কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া ইউপি চেয়ারম্যান দুদকের জালে

বাদল/জনপ্রিয়

x